priyonaogaon@gmail.com শনিবার, ১৩ই এপ্রিল ২০২৪, ২৯শে চৈত্র ১৪৩০

দুপুরে বাসা ভাড়া, রাতে খুন যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত:
৫ অক্টোবার ২০২৩, ১৭:৪৯

সংগৃহিত ছবি

নওগাঁয় মিলন হোসেন (২৬) নামে এক যুবকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার রাত ১১টার দিকে নওগাঁ শহরের দয়ালের মোড়ের পাশে বউ বাজার এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

মিলন নওগাঁ শহরের বাঙ্গাবাড়িয়া মহল্লার মৃত আব্দুল মালেকের ছেলে। পেশায় মিলন একজন অটোরিকশাচালক ছিলেন।

স্থানীয় ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নওগাঁ শহরের দয়ালের মোড়ের পাশে বউ বাজার এলাকায় মোজাম্মেল হকের বাসায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। তবে তিনি শহরের বাসায় না থেকে গ্রামের বাড়ি জেলার মান্দা উপজেলায় বসবাস করেন। তার বাসাটি ভাড়া দেয়ার জন্য দায়িত্ব দিয়েছেন শাশুড়ি সাজেদা বেগমকে।

গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে মিলন ও শারমিন নিজেদের স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে বাসাটি ভাড়া নেন। রাতের কোনো এক সময় মিলনকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যান শারমিন আক্তার। বাসার জানালা খোলা থাকলেও মূল দরজায় তালা দেয়া ছিল।

প্রতিবেশীরা নতুন ভাড়াটিয়ার খোঁজ-খবর নিতে এসে দরজায় তালা দেয়া দেখে ফিরে যান। তবে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘরের জানালা খোলা থাকায় উঁকি দিয়ে দেখে রক্তাক্ত অবস্থায় কেউ একজন পড়ে আছে। পরে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরে পুলিশ এসে দরজার তালা ভেঙে বাসায় ঢুকে মরদেহটি উদ্ধার করে।

বাসার মালিকের শাশুড়ির সাজেদা বেগম বলেন, বাসার দুইটা অংশ। মাঝখানে দেয়াল দিয়ে আলাদা করা আছে। একপাশে ভাড়াটিয়া আছে। অপরপাশেও ফাঁকা ছিল। বুধবার দুপুরে তারা দুইজন স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে মাসিক চার হাজার টাকায় ভাড়া নেয়।

তাদের কাছে জাতীয় পরিচয়পত্র চাওয়া হলে পরে দেবে বলে জানায়। বাসা পরিষ্কার করে তারা দুজনে থাকা শুরু করে। তবে রাতের কোনো এক সময় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

মিলনের মা সেলিমা খাতুন বলেন, পারিবারিক একটু ঝামেলার কারণে মিলন ও তার বউ দুজন মিলে ভাড়া বাড়িতে থাকার সিন্ধান্ত নেয়। আমার ছেলের বউ শারমিন পৃথক থাকতে চাপ দেয়। যে কারণে মিলন ভাড়া বাসা নেয়।

এমনভাবে আমার ছেলেকে হত্যা করা হবে তা কল্পনা করতে পারিনি। শারমিন তো পলাতক। সে এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। তাকে দ্রুত আটক করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়সাল বিন আহসান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে এটি পরিকল্পনা মাফিক একটি হত্যাকাণ্ড।

এ ঘটনার পর থেকে তার স্ত্রী পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। মিলনের স্ত্রী শারমিন এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত নাকি অন্যকেই যুক্ত, এসব বিষয়ে তদন্ত চলছে।

প্রিয় নওগাঁ/এফএস


মন্তব্য করুন:

সম্পর্কিত খবর